কিডনিতে পাথর Kidney Stone

blog-pic-453

আপনার কোমরের পেছনের দিকে কি ব্যথা হচ্ছে? প্রস্রাবের সাথে কি রক্ত যাচ্ছে? মাঝে মাঝে প্রস্রাব অতিরিক্ত হলুদ হচ্ছে? ব্যথায় ঠিক মত হাটতে পারছেন না? ঘুমাতে পারছেন না?
তাহলে হয়ত আপনি ভুগছেন কিডনিতে পাথর নামক রোগে।কিডনিতে পাথর আমরা সচরাচর শুনতে পাই কিন্তু অনেকেই আমরা জানিনা কি কারণ আর কি কি লক্ষণ দেখে বুঝা যায় আপনার কিডনিতে পাথর হয়েছে। আসুন আমরা জেনে নেইঃ

কাদের হতে পারে এই সমস্যা:
১) ভিটামিন এ ডেফিসিয়েন্সি: “ভিটামিন এ” এর অভাবে কিডনির এপিথেলিয়ামগুলো ক্ষয়ে যেতে থাকে তখন পাথর হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়,
২) আমাদের মাঝে অনেকেরই পানি কম খাওয়ার একটা অভ্যাস আছে, কিন্তু তিনি হয়ত জানেন না এই খাওয়ার অভ্যাস তার কিডনিতে ধীরে ধীরে বাসা বাধাচ্ছে পাথরের,
৩) কিডনির ইনফেকশন
৪) ঠিকমত ব্লাডার খালি না হওয়া বা প্রস্রাব থেকে যাওয়া,
৫) অপারেশন পরবর্তী সময়ে বা যারা চলাফেরা করতে পারেন না তাদের মাংসপেশি কম ব্যবহৃত হওয়ার কারণে প্রস্রাবে ক্যালসিয়ামের পরিমাণ বেড়ে যায়, যার কারণে পাথর হওয়ার সম্ভাবনা ও বেড়ে যায়,
৬) প্যারাথাইরয়েড গ্রন্থির নিঃসরণ বেড়ে গেলে।

কি কি ধরনের পাথর হতে পারে:
সাধারণত কিডনির পাথর নিম্নোক্ত ৫ প্রকারের মাঝে যে কোন এক ধরনের হতে পারে যেমনঃ
১) অক্সালেট টাইপ,
২) ফসফেট টাইপ,
৩) ইউরিক এসিড বা ইউরেট টাইপ,
৪) সিস্টিন টাইপ,
৫) জ্যান্থিন টাইপ।

কি কি লক্ষণ দেখা দেয়:
১) অনেকের ক্ষেত্রে কোন লক্ষণ দেখতে পাওয়া যায় না, পুরাপুরি লক্ষণ ছাড়া থাকে,
২) প্রস্রাবের সাথে রক্ত যাওয়া,
৩) প্রস্রাবে ইনফেকশন হওয়া,
৪) পিঠের নিচের দিকে ব্যথা হওয়া,
৫) পেট বা কূচকীতে ব্যথা হওয়া,
৬) প্রস্রাবের সময় জালাপোড়া বা ব্যথা হওয়া,
৭) সব সময় প্রস্রাবের বেগ অনুভুত হওয়া,
8) অল্প পরিমান মুত্র নিস্রিত হয়।

এরকম লক্ষণ দেখা দিলে ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া উচিত, কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া যায় যে কিডনিতে পাথর আছে কিনা আর তা হল:
১) সিবিসি,
২) ইউরিন এনালাইসিস,
৩) ব্লাড ইউরিয়া,
৪) সেরাম ক্রিয়েটিনিন,
৫) এক্স রে অফ কেইউবিরিজিওন
৬) আল্ট্রাসোনোগ্রাফি অফ কেইউবিরিজিওন

চিকিৎসা কি হতে পারে:
১) রোগীকে সম্পূর্ণভাবে বিশ্রামে থাকতে হবে,
২) ঘুমের জন্য ঘুমের ঔষধ দেয়া যায়,
৩) প্রচুর পরিমাণে পানি খাওয়া উচিত,
৪) ইনফেকশনের ক্ষেত্রে এন্টিবায়োটিক দেয়া যাবে তবে এগুলা লক্ষণ মাফিক চিকিৎসা, পরবর্তীতে শল্য চিকিৎসার মাধ্যমে কিডনি থেকে পাথর বের করে আনতে হবে।

কিডনিতে পাথর আপনার উদাসীনতার কারণে সৃষ্ট একটি রোগ। তাই নিজের স্বাস্থ্য নিয়ে সচেতন হোন, ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন।

ডাক্তারের সাথে আনলিমিটেড কথা বলতে ও স্বাস্থ্য সেবা জনিত খরচে ক্যাশব্যাক পেতে ই-স্বাস্থ্য মেম্বার হওন। ক্লিক করুন এখানে।

ডক্টোরোলা ডট কম (www.doctorola.com) প্রচারিত সকল তথ্য সমসাময়িক বিজ্ঞানসম্মত উৎস থেকে সংগৃহিত এবং এসকল তথ্য কোন অবস্থাতেই সরাসরি রোগ নির্ণয় বা চিকিৎসা দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রকাশিত নয়। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি ডক্টোরোলা ডট কমের (www.doctorola.com) লক্ষ্য।

দেশজুড়ে অভিজ্ঞ ডাক্তারদের খোঁজ পেতে ও অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে ভিজিট করুন www.doctorola.com অথবা কল করুন 016484 নম্বরে।

Wikipedia: Kidney stone disease, also known as urolithiasis, is when a solid piece of material (kidney stone) occurs in the urinary tract. Kidney stones typically form in the kidney and leave the body in the urine stream. A small stone may pass without causing symptoms. If a stone grows to more than 5 millimeters (0.2 in) it can cause blockage of the ureter resulting in severe pain in the lower back or abdomen. A stone may also result in blood in the urine, vomiting, or painful urination. About half of people will have another stone within ten years.

Comments are closed.