Not Available Date for this Advertisement

গাইনীকোম্যাশিয়া বা পুরুষের স্তনের আকার বড় হয়ে যাওয়া

blog-pic-343

পুরুষের স্তনের অস্বাভাবিক বৃদ্ধিকে বলা হয় গাইনীকোম্যাশিয়া। এক্ষেত্রে সাধারণত দুদিকের স্তনই বৃদ্ধি পায় তবে কখনও কখনও শুধু একদিকে হতে পারে।

এক্ষেত্রে রোগীর কাছ থেকে কিছু প্রশ্নের উত্তর জেনে নেয়া হয়। যেমন :
১. কতো বছর বয়স থেকে সমস্যাটি শুরু হয়।
২. কতদিন ধরে সমস্যাটি হচ্ছে।
৩. সম্প্রতি স্তনবৃন্তের আকারে কোনও পরিবর্তন এসেছে কি না। ব্যথা আছে কি না অথবা কোনও তরল নিঃসৃত হয় কি না।
৪. পূর্বে মাম্পস রোগ, অণ্ডকোষে আঘাত, মদ্যপান অথবা নেশার কোনও ইতিহাস আছে কি না।
৫. পরিবারের আর কারও এ ধরনের সমস্যা আছে কি না।
৬. যৌনমিলনে সমস্যা বা বন্ধ্যত্বের কোনও ইতিহাস আছে কি না।

কি কি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়?
১. রক্তে ফ্রি অথবা টোটাল টেস্টোস্টেরনের মাত্রা
২. রক্তে লুটিনাইজিং হরমোনের মাত্রা
৩. রক্তে এস্ট্রাডিয়লের মাত্রা
৪. রক্তে থাইরয়েড স্টিমুলেটিং হরমোন এবং ফ্রি থাইরক্সিনের মাত্রা
৫. ম্যামোগ্রাফি
৬. টেস্টিকুলার আল্ট্রাসনোগ্রাফি
৭. ব্রেস্ট আল্ট্রাসনোগ্রাফি
৮. সিটি স্ক্যান।

কীভাবে চিকিৎসা করা হয়?
– যদি এটি স্বাভাবিক গাইনীকোম্যাশিয়া হয়ে থাকে, তাহলে চিকিৎসার প্রয়োজন নেই।
– বয়ঃসন্ধি-কালীন গাইনীকোম্যাশিয়া হলে তা কয়েক সপ্তাহ থেকে শুরু করে ৩ মাসের মধ্যে বেশিরভাগের ক্ষেত্রেই স্বাভাবিক হয়ে যায়।
– এ সমস্যার পেছনের প্রাথমিক কারণটি বের করে তার চিকিৎসা করা হয়।
– যাদের ক্ষেত্রে গাইনীকোম্যাশিয়ার কারণ জানা যায় না অথবা প্রাথমিক কারণের পরেও স্তন বড় থেকে যায় তাদের ক্ষেত্রে ওষুধের মাধ্যমে চিকিৎসা বা অপারেশনের কথা বিবেচনা করা হয়।

Subscribe “Doctorola TV” (Online Health Channel)

ডক্টোরোলা ডট কম (www.doctorola.com) প্রচারিত সকল তথ্য সমসাময়িক বিজ্ঞানসম্মত উৎস থেকে সংগৃহিত এবং এসকল তথ্য কোন অবস্থাতেই সরাসরি রোগ নির্ণয় বা চিকিৎসা দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রকাশিত নয়। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি ডক্টোরোলা ডট কমের (www.doctorola.com) লক্ষ্য।

 
দেশজুড়ে অভিজ্ঞ ডাক্তারদের খোঁজ পেতে ও অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে ভিজিট করুন www.doctorola.com অথবা কল করুন 16484 নম্বরে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *