Not Available Date for this Advertisement

Scabies খোস-পাঁচড়া (স্ক্যাবিস)

blog-pic-440

চুলকানির অন্যতম কারণ এই খোস-পাঁচড়া বা স্ক্যাবিস। অত্যন্ত কষ্টদায়ক এই রোগ আমাদের দেশে বেশ পরিচিত। আসুন জেনে নিই এই রোগের কারণ, লক্ষণ এবং চিকিৎসা।

কেন হয়?
স্ক্যাবিস কোন ইনফেকশন নয়। সারকোপটিস স্ক্যাবি (Sarcoptes scabie) নামক একটি পরজীবী আমাদের ত্বকে প্রবেশ করে। এই পরজীবী আমাদের ত্বকের অগভীরে ডিম পাড়ে এবং ক্রমশ বংশ বিস্তার করতে থাকে। এতে আমাদের ত্বকে অনুভূত হয় জ্বালা-পোড়া এবং চুলকানি। এই পরজীবীদের আমাদের শরীরের কিছু স্থান বেশি পছন্দ। এগুলো হলঃ
১. আঙ্গুলের ফাঁকে,
২. হাতের কবজি,
৩. বগল,
৪. নাভি ও নাভির চারপাশে,
৫. স্তন,
৬. বেল্ট লাইনে অর্থাৎ যে লেভেলে বেল্ট লাগানো হয়,
৭. জননাঙ্গ,
৯. উরুর ভেতরের অংশ,
১০. পায়ুপথ ও পশ্চাৎ দেশে।

স্ক্যাবিস কিভাবে ছড়ায়:
আক্রান্ত মানুষ থেকে এই রোগের সংক্রমণ হয়ে থাকে। কুকুর বা বিড়ালেরও এই রোগ হয়ে থাকে, তবে তা অন্য প্রজাতির পরজীবী থেকে এদের দেহে ছড়ায়। মানুষে সেই সব পরজীবী রোগ তৈরি করতে পারে না।পরজীবীটি উড়তে পারে না। ফলে সংক্রমণ এর জন্য আক্রান্ত ব্যাক্তির সংস্পর্শে আসা লাগে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও অপরিচ্ছন্নতার কারণে এই রোগগুলো বেশি হয়ে থাকে। আক্রান্ত ব্যক্তির তোয়ালে, বালিশ ও বিছানায় চাদর দ্বারা এই রোগটি সংক্রমিত হয়।  এছাড়া যৌন মিলন এর সময় ও আক্রান্ত ব্যাক্তির ত্বক থেকে এই পরজীবী সুস্থ মানুষে যেতে পারে।

স্ক্যাবিসের লক্ষনঃ
১. রোগটির প্রধান লক্ষণ হল চুলকানি। চুলকানি সাধারণত গরম পরিবেশে এবং রাতে বেশি হয়। চুলকানি এতই তীব্র হয় যে ঘুম ভেঙ্গে যেতে পারে। সংক্রমণের ২-৬ সপ্তাহ পর লক্ষণ দেখা দেয়।
২. চুলকানি এর সাথে শরীরে র‍্যাশ তৈরি হতে পারে। র‍্যাশ দেখতে লাল, ছোট হয়। র‍্যাশ এর সাথে লম্বা দাগ, ছোট ফুসকুড়ি ও থাকতে পারে।
৩. র‍্যাশ বা চুলকানি কখনই ঘাড়ের উপরে যায় না। তবে বাচ্চাদের ক্ষেত্রে কিছু ক্ষেত্রে মুখমণ্ডল আক্রান্ত হতে পারে।
৪. অতিরিক্ত চুলকানি এর ফলে ত্বকে ইনফেকশন হতে পারে।

চিকিৎসা: এই রোগটি কখনই নিজে নিজে সেরে যাবে না। এই রোগের চিকিৎসা এর একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হল আক্রান্ত ব্যাক্তির সাথে সাথে পরিবারের সবাইকে চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ মত ক্রিম পরিবারের সকলকেই ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া ব্যবহার করা সকল চাদর, কাপড়, তোয়ালে গরম পানিতে ধুয়ে ফেলতে হবে। কিছু ক্ষেত্রে মুখে খাবার ওষুধ লাগতে পারে। মানুষের শরীরের বাইরে এই পরজীবী বেশি দিন বেঁচে থাকতে পারে না।

ঝুঁকি: দ্রুত চিকিৎসা করলে এই রোগ সহজেই সেরে যায়।তবে দীর্ঘদিন চিকিৎসা না করালে কিডনির মারাত্মক রোগ তৈরি করতে পারে।

Subscribe “Doctorola TV” (Online Health Channel)

ডক্টোরোলা ডট কম (www.doctorola.com) প্রচারিত সকল তথ্য সমসাময়িক বিজ্ঞানসম্মত উৎস থেকে সংগৃহিত এবং এসকল তথ্য কোন অবস্থাতেই সরাসরি রোগ নির্ণয় বা চিকিৎসা দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রকাশিত নয়। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি ডক্টোরোলা ডট কমের (www.doctorola.com) লক্ষ্য। অনুমতি ব্যাতিত ডক্টরোলার ব্লগের লেখা কোন অনলাইন বা অফলাইন মিডিয়াতে ব্যবহার করা যাবে না। লেখা সংক্রান্ত কোন মতামত থাকলে অনুগ্রহ করে ব্লগের নিচে “Leave a Reply” সেকশনে বিস্তারিত লিখুন।
 
দেশজুড়ে অভিজ্ঞ ডাক্তারদের খোঁজ পেতে ও অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে ভিজিট করুন www.doctorola.com অথবা কল করুন 16484 নম্বরে।
From Wikipedia: Scabies, also known as the seven-year itch, is a contagious skin infestation by the mite Sarcoptes scabiei. The most common symptoms are severe itchiness and a pimple-like rash. Occasionally, tiny burrows may be seen in the skin. In a first ever infection a person will usually develop symptoms in between two and six weeks. During a second infection symptoms may begin in as little as 24 hours. These symptoms can be present across most of the body or just certain areas such as the wrists, between fingers, or along the waistline. The head may be affected, but this is typically only in young children. The itch is often worse at night. Scratching may cause skin breakdown and an additional bacterial infection of the skin.

Comments are closed.