দাঁত শিরশির করা

blog-pic-370

দন্ত বিষয়ক যে সমস্যাটি নিয়ে সবচেয়ে বেশি রোগীরা ভোগেন, সেটি হচ্ছে -দাঁত শিরশির করা। দাঁত শিরশির বা টুথ সেন্সিটিভিটি হলও-ঠাণ্ডা বা গরম কিছু খেতে গেলে দাঁতের সংবেদনশীলতা।

কারণ:
কোনোভাবে দাঁতের  বহির্ভাগের এনামেল ক্ষয় হয়ে গেলে তার পরবর্তী অংশ ডেন্টিন বের হয়ে যেতে পারে। এই ডেন্টিনের নিচে দাঁতের স্নায়ু ও রক্তনালী থাকে। তাই যখন এনামেল ক্ষয় হয়ে যায়,ঠাণ্ডা বা গরমে’র সংস্পর্শে এক বা একাধিক দাঁত সংবেদনশীল হয়ে যায়। অনুমতি ব্যাতিত ডক্টরোলার ব্লগের লেখা কোন অনলাইন বা অফলাইন মিডিয়াতে ব্যবহার করা যাবে না।

এনামেল ক্ষয় কীভাবে হতে পারে?
বিভিন্ন ভাবে দাঁতের এনামেল ক্ষয় হতে পারে। যেমন:
১. ডেন্টাল প্লাক ও ক্যালকুলাস জমে দাঁত ও মাড়ি’র ক্ষয় হতে পারে।
২. সঠিক নিয়মে দাঁত ব্রাশ না করা
৩. কোনোভাবে আঘাতে দাঁত ভেঙ্গে গেলে
৪. কার্বোনেটেড  পানীয় অধিক মাত্রায় গ্রহণ
৫. দন্ত ক্ষয় (Dental Caries)
৬. পান/সুপারি অতিরিক্ত গ্রহণে দাঁতের এনামেল ক্ষয় হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি
৭. টুথ পেস্ট ছাড়া ছাই, বালি বা এরকম জাতীয় কোনও জিনিস দিয়ে দাঁত মাজলে
৮. অবচেতন মনে বা ঘুমে দাঁতে দাঁত ঘষলে(Bruxism) ইত্যাদি

লক্ষণ:
– ঠাণ্ডা/গরম জাতীয় খাবার গ্রহণে সংবেদনশীলতা
– টক বা মিষ্টি জাতীয় খাদ্য গ্রহণের সময় ও এই অনুভূতি হতে পারে
– ক্ষণস্থায়ী দাঁতে ব্যথা করা

প্রতিকার:
১. প্রথমের ডেন্টাল স্কেলিং এর মাধ্যমে দাঁতে জমে থাকা প্ল্যাক ও ক্যালকুলাস দূরীভূত করতে হবে এবং যথাযথভাবে মুখের পরিচ্ছন্নতা(Oral Hygiene) বজায় রাখতে হবে।
২. অম্ল বা কার্বোনেটেড জাতীয় পানীয় গ্রহণ সীমাবদ্ধ করতে হবে।
৩. টুথপেস্ট ছাড়া অন্য কোনও পদার্থ দিয়ে দাঁত ব্রাশ করা পরিহার করতে হবে।
৪. দন্ত ক্ষয় বা দাঁত ভেঙ্গে গেলে সেটা যথাসময়ে ফিলিং এর মাধ্যমে সংরক্ষণ করতে হবে।
৫. ফ্লোরাইড যুক্ত টুথ পেস্ট ব্যবহার করা যেতে পারে।
৬. ডিসেন্সিটাইজিং মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করা যেতে পারে।
৭. সঠিক ধরণের টুথ ব্রাশ ব্যবহার ও সঠিক নিয়মে ব্রাশ করতে হবে।
৮. পান /সুপারি গ্রহণ পরিত্যাগ করতে হবে।
৯. দাঁতে দাঁত ঘষার অভ্যাস থাকলে মাউথ গার্ড ব্যবহার করা যেতে পারে।
১০. ৬ মাস কিংবা ১ বছর অন্তর একজন ডেন্টাল সার্জনের শরণাপন্ন হলে দাঁতের শিরশির বা এ জাতীয় বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

– ইউটিউবে স্বাস্থ্য টিপস পেতে ক্লিক করুন “Doctorola TV” (Online Health Channel) –

ডক্টোরোলা ডট কম (www.doctorola.com) প্রচারিত সকল তথ্য সমসাময়িক বিজ্ঞানসম্মত উৎস থেকে সংগৃহিত এবং এসকল তথ্য কোন অবস্থাতেই সরাসরি রোগ নির্ণয় বা চিকিৎসা দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রকাশিত নয়। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি ডক্টোরোলা ডট কমের (www.doctorola.com) লক্ষ্য। অনুমতি ব্যাতিত ডক্টরোলার ব্লগের লেখা কোন অনলাইন বা অফলাইন মিডিয়াতে ব্যবহার করা যাবে না। লেখা সংক্রান্ত কোন মতামত থাকলে অনুগ্রহ করে ব্লগের নিচে “Leave a Reply” সেকশনে বিস্তারিত লিখুন।

দেশজুড়ে অভিজ্ঞ ডাক্তারদের খোঁজ পেতে ও অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে ভিজিট করুন www.doctorola.com অথবা কল করুন 16484 নম্বরে।

3 Comments

  1. Zalaluddinmasum says:

    দাঁত ফেলে দেওয়ার পর ফঁাকা অংশে কি করতে পারি??