ট্রাইজেমিনাল নিউরালজিয়া

blog-pic-281

ট্রাইজেমিনাল নার্ভ হচ্ছে মুখমন্ডলের বিভিন্ন জায়গায় সংবেদন ও ক্রিয়ার সহায়তাকারী স্নায়ু। এর ৩টি শাখা আছে। কোনো কারণে এই স্নায়ু আক্রান্ত হলে ট্রাইজেমিনাল  নিউরালজিয়া বিকাশিত হয়। ট্রাইজেমিনাল নিউরালজিয়া হলে একধরণের দীর্ঘকাল স্থায়ী ব্যথা  হয়। ব্যথা  কয়েক সেকেন্ড হতে কয়েক মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে, আবার কিছুক্ষণ পর পর কিছু সময়ের জন্য আবারো ব্যথা  হতে পারে।

ব্যথা  সাধারণত গাল, দাঁত, মাড়ি, চোখ কিংবা অনেকসময় কপালের দিকে ছড়িয়ে যায়। সাধারণত একপাশেই ব্যথা  হয়ে থাকে এই ধরণের রোগীদের, কিন্তু অনেকের ক্ষেত্রে মুখের দু’পাশেও ব্যথা  হতে পারে।
•    ব্যথার ধরন: চাপ দেওয়া ধরনের কিংবা তীব্র ব্যথা  হয়ে থাকে।
•    ব্যথা  কখন বাড়ে:
-খাওয়া কিংবা চর্বনের সময়
-কথা বলার সময়
-হাসাহাসি করার সময়
-আক্রান্ত পাশে স্পর্শ করলে
-বাতাস লাগলে
-দাঁত ব্রাশের সময় ইত্যাদি

•    ট্রাইজেমিনাল নিউরালজিয়া’র কারণ:
– বয়স বাড়ার সাথে, সাধারণ ৪০উর্দ্ধো বয়সের মানুষে এটা দেখা যায়।
-কোনো ভাবে স্নায়ু কম্প্রেসড হলে
-মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস
-মুখে কোনা সার্জারি কিংবা আঘাত পাওয়া থেকেও হতে পারে।

•    আরো যা যা সমস্যা দেখা যায়: এই রোগের নিজস্ব লক্ষণ ছাড়াও রোগির মধ্যে আরো কিছু লক্ষণ দেখা যায়-
– বিষন্নতা
– ব্যথা র জন্য যেহেতু দাঁত ও মুখ পরিষ্কার রাখতে পারেনা,সেজন্য মুখের পরিচ্ছন্নতা (ওরাল হাইজিন) ভালো থাকেনা।

•    চিকিৎসা :
এন্টিকনভালসেন্ট ড্রাগস
মাসোল রিলাক্সিং এজেন্ট(মাংশপেশী শিথিলের জন্য)
ভিটামিন/নিউট্রিশোনাল থেরাপী
সার্জারী:
মাইক্রোভাস্কুলার ডিকম্পেশন
গামা-নাইফ রেডিওসার্জারী

ডক্টোরোলা ডট কম (www.doctorola.com) প্রচারিত সকল তথ্য সমসাময়িক বিজ্ঞানসম্মত উৎস থেকে সংগৃহিত এবং এসকল তথ্য কোন অবস্থাতেই সরাসরি রোগ নির্ণয় বা চিকিৎসা দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রকাশিত নয়। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি ডক্টোরোলা ডট কমের (www.doctorola.com) লক্ষ্য।

দেশজুড়ে অভিজ্ঞ ডাক্তারদের খোঁজ পেতে ও অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে ভিজিট করুন www.doctorola.com অথবা কল করুন 16484 নম্বরে।

Comments are closed.