জুতো-মোজার দুর্গন্ধে করণীয়

Shoe-Odor

কাজের শেষে বাসায় ফিরে জুতো খুলতে অস্বস্তি? মোজার দুর্গন্ধে বিব্রত? জেনে নিন দুর্গন্ধ কেন হয় এবং প্রতিকার।

দুর্গন্ধ কেন হয়?
প্রতিদিন একই জুতো-মোজা ব্যবহার। একটানা মোজা ব্যবহার করলে পায়ের ত্বকের সাধারণ ব্যাক্টেরিয়া এবং ময়লার কারণে দুর্গন্ধ হয়। উষ্ণ ও আর্দ্র আবহাওয়ায় শরীরের স্বাভাবিক ঘামে মোজা ভিজে গেলে সেটা রোদে না শুকানো হলেও গন্ধ হতে পারে। ব্যক্তিগত পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা মেনে না চললে। পায়ের আঙ্গুলের নখে ময়লা জমে, ছত্রাকের সংক্রমণে গন্ধ হতে পারে। অতিরিক্ত হাত-পা ঘামলে (হরমোনের কারণে বয়ঃসন্ধিকালের পর অনেকের ঘাম বেশি হয়), এছাড়া, মানসিক উদ্বেগ-দুশ্চিন্তা, পায়ের দীর্ঘস্থায়ী ক্ষত, যে কোন ধরনের ত্বকের সংক্রমণে পায়ে দুর্গন্ধ হতে পারে।
প্রতিকার
# খেয়াল রাখতে হবে পা যেন না ঘামে, ঘামলে সম্ভব হলে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছতে হবে। প্রতিবার অজু/গোছল এর পর পা শুকনো করে মুছতে হবে, মূল লক্ষ্য পা যেন শুষ্ক থাকে।
# দৈনিক মোজা পরিবর্তন করতে হবে অর্থাৎ এক জোড়া মোজা পর পর দুদিন ব্যলবহার না করা।
# বাজারে প্রচলিত এন্টিসেপ্টিক সাবান দিয়ে দৈনিক দুবার পা ধোয়া। হেক্সিসল (এন্টিসেপ্টিক) একটু তুলায় লাগিয়ে পায়ের আঙ্গুলগুলোর ফাঁকে রেখে জুতো পড়তে পারেন। ব্যবহৃত জুতো রোদে আধা ঘন্টা দিয়ে রাখতে হবে।
# নিয়মিত পায়ের নখ কেটে ফেলতে হবে। নখের চারপাশ পরিষ্কার রাখলে পায়ের যে কোন ক্ষত, সংক্রমণ দ্রুত চিকিৎসা করা।
ডক্টোরোলা ডট কম (www.doctorola.com) প্রচারিত সকল তথ্য সমসাময়িক বিজ্ঞানসম্মত উৎস থেকে সংগৃহিত এবং এসকল তথ্য কোন অবস্থাতেই সরাসরি রোগ নির্ণয় বা চিকিৎসা দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রকাশিত নয়। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনা সৃষ্টি ডক্টোরোলা ডট কমের (www.doctorola.com) লক্ষ্য।দেশজুড়ে অভিজ্ঞ ডাক্তারদের খোঁজ পেতে ও অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে ভিজিট করুন www.doctorola.com অথবা কল করুন 16484 নম্বরে।

Comments are closed.