খুশকি প্রতিরোধে করণীয়

Dandruff

::: খুশকি প্রতিরোধে করনীয় :::

মাথার ত্বকের উপরে থাকা ধূসর বা সাদা আস্তরকে খুশকি বলা হয়। অনেক সময় কাঁধের উপর সাদা খুশকি পরে থাকতে দেখা যায়। সেই সাথে ত্বকের শুষ্কতা এবং চুলকানি ও হতে পারে।

আক্রান্ত এলাকা
১) মাথার ত্বক
২) মুখমন্ডল
৩) কানের ভেতর এবং বাইরে
৪) বুকের সামনের অংশে এবং দুই কাঁধের মাঝের জায়গাটিতে (পিঠের দিকে)
৫) শরীরের ভাঁজ হয়ে থাকা স্থান। যেমন, বগল, কুঁচকি, ঊরুর ভেতরের দিক ইত্যাদি।

খুশকি হওয়ার লক্ষণ-
প্রথমে হালকা গোলাপি আস্তর থেকে শুরু করে পরবর্তীতে অধিকতর পুরু এবং শক্ত আস্তরনে পরিনত হতে পারে। কিছুক্ষেত্রে এটি সংক্রমন (ইনফেকশন) এর দিকে যেতে পারে, এর ফলে লাল হয়ে যাওয়া, ব্যাথা এমনকি পুঁজ বা তরল বের হয়। এর থেকে অনেকক্ষেত্রে চুল পড়ে যায়।

খুশকির সমস্যা কেন হয়?
আমাদের দেহের স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় ত্বকের মৃত কোষ নতুন কোষ দিয়ে প্রতিস্থাপিত হয়। এই প্রক্রিয়ার অস্বাভাবিক বৃদ্ধি খুশকির অন্যতম প্রধান কারন। বিভিন্ন কারনে এই বৃদ্ধি হতে পারে-

# মাথার চুলে অত্যধিক রাসায়নিক দ্রব্য সামগ্রির ব্যবহার
# মানসিক দুশ্চিন্তা
# মাথার ত্বক ও চুল প্রয়োজন এর অতিরিক্ত পরিস্কার করতে যাওয়া বা অপরিষ্কার রাখা।
# এছাড়া সেবরিক ডারমাটাইটিস, দাদ,বিভিন্ন ত্বকীয় রোগের কারনে খুশকি হতে পারে।

কারা আক্রান্ত হয়?
বয়ঃসন্ধি থেকেই সাধারনত খুশকির সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে বিশ বছর বয়স থেকে মধ্যবয়সীদের এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। শিশুর জন্মের দুই মাসের মধ্যে হলুদ,তৈলাক্ত, ত্বকীয় ক্ষত দেখা যেতে পারে। খুশকির সমস্যা মেয়েদের তুলনায় পুরুষদের মধ্যে বেশি দেখা যায়।

খুশকি প্রতিরোধ-
# মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে প্রতিদিন মাথার ত্বক পরিষ্কার রাখুন। টি ট্রি অয়েলযুক্ত শ্যাম্পু এক্ষেত্রে কার্যকরী।
# শ্যাম্পু করার সময় বা চুল আঁচড়ানোর সময় বেশি জোরে আঁচড়ানোর অভ্যাস যথাসম্ভব পরিহার করুন।
# হেয়ার স্প্রে ,জেল ইত্যাদি ব্যবহার কমিয়ে আনুন।
# রোদে বের হবার সময় প্রটেকশন (লোশন,ক্রিম বা স্কার্ফ) ব্যবহার করুন।
# ব্যাপক আকারে দেখা দিলে আপনার ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী এন্টি- ড্যান্ড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার করুন।

এছাড়া খুশকির অবস্থাভেদে ফিজিশিয়ান এর পরামর্শ নিয়ে বিভিন্ন ক্রিম বা লোশন লাগানো যেতে পারে।

ডক্টোরোলা ডট কম (www.doctorola.com) প্রচারিত সকল তথ্য সমসাময়িক বিজ্ঞানসম্মত উৎস থেকে সংগৃহিত এবং এসকল তথ্য কোন অবস্থাতেই সরাসরি রোগ নির্ণয় বা চিকিৎসা দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রকাশিত নয়। জনগণের স্বাস্থ্য সচেতনা সৃষ্টি ডক্টোরোলা ডট কমের (www.doctorola.com) লক্ষ্য।

দেশজুড়ে অভিজ্ঞ ডাক্তারদের খোঁজ পেতে ও অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে ভিজিট করুন www.doctorola.com অথবা কল করুন 16484 নম্বরে।

Comments are closed.